1. admin@bangladeshbarta71.com : admin :
রবিবার, ২৯ মে ২০২২, ০৫:২৯ অপরাহ্ন

রাসুল (সাঃ) এর সুন্নত ও আধুনিক স্বাস্থ্য বিজ্ঞান

বাংলাদেশ বার্তা ৭১
  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর, ২০২১
  • ১৪৯ বার পঠিত

ডা. মাও. গোলাম মোস্তফা

অন্যায় অবিচার জুলুম নির্যাতন দুর্নীতি পাপাচার ও নানাবিধ কুসংস্কারে মানবজাতি যখন ধ্বংসের দ্বার প্রান্তে তখন আল্লাহ রাব্বুল আলামিন মানবজাতীকে হেদায়াতের জন্য আলোক বর্তিকা হিসেবে সর্বকালের সর্ব শ্রেষ্ট মহামানব হযরত মুহাম্মদ সা. কে সর্ব শ্রেষ্ট মহাগ্রন্থ আল-কোরআন দিয়ে প্রেরণ করেন। রাসুল সা. উত্তম আদর্শ ও মহাগ্রন্থ কোরআনের অনুস্মরণে অসভ্য বর্বর জাতী উৎকৃষ্ট ও বিশ^ নেতৃত্বদানকারি শ্রেষ্ট জাতীতে রুপান্তরিত হয়। রাসুল সা. এর ব্যাক্তি জীবন থেকে শুরু করে পারিবারিক সামাজিক ্এমনকি রাষ্ট্রীয় জীবন ছিল বিশ^ মানবতার সেবায় নিয়োজিত ন্যায় ও ইনসাফ ভিত্তিক আধুনিক বিজ্ঞান সম্মত। তার প্রতিটি কথা কাজ আদেশ নিষেধে রয়েছে মানবজাতীর জন্য কল্যাণ ও প্রশান্তির ছোয়া। কারণ তিনি তো ছিলেন বিশ^বাসীর জন্য রতমত স্বরুপ। তার প্রতিটি কথা ব্যাক্তি মুহাম্মদ সা. এর নয় বরং আল্লাহ প্রদত্ত ওহী।
পবিত্র কোরআনের সুরা নজমের ৩ ও ৪ নম্বর আয়াতে আল্লাহ তায়ালা বলেন- ‘আর তিনি মনগড়া কোন কথা বলেন না। তিনি যা বলেন তা তো ওহী বা আল্লাহর বাণী, যা তার উপর প্রেরণ করা হয়’।
রাসুল সা. এর সকল কথা কাজ ও মৌন সমর্থনকে হাদিস বা সুন্নত বলা হয়। তার এ সুন্নত নিয়ে আধুনিক বিজ্ঞানে গবেষণা করা হচ্ছে। যতই গবেষণা করা হচ্ছে ততই এর গুরুত্ব ও গ্রহনযোগ্যতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। চিকিৎসা বিজ্ঞান সমাজ বিজ্ঞান ও রাষ্ট্র বিজ্ঞান দর্শন শাস্ত্র জ্যোতিবিদ্যা ইতিহাস অর্থনীতি বিচার ব্যবস্থা ধর্মতত্ব এমনকি সাংস্কৃতি অঙ্গনে রাসুল সা. এর সুন্নত সমুহ তথ্য প্রযুক্তির এ যুগেও শতভাগ বিজ্ঞান সম্মত। মানবজাতীর জন্য সমস্ত নেয়ামতের মধ্যে সর্বোৎকৃষ্ট নেয়ামত হল সুস্থ্যতা। রাসুল সা. ্এর সুন্নত অনুযায়ী জীবন যাপন করলে যে কতটুকু সুস্থ্য থাকা যায় তা কেবন সাহাবাদের জীবনী থেকেই জানতে পারি। ভিনদেশী রাজা উপঢৌকন হিসেবে রাসুল সা. এর দরবারে চিকিৎসক প্রেরণ করেছিলেন। দীর্ঘদিন মদিনায় থাকার পর চিকিৎসক রাসুল সা. কে বললেন আমাকে ক্ষমা করবেন আমি চলে যাব অনেকদিন ধরে এসেছি কোন রোগী পাইনি এর কারণ বলবেন কি? রাসুল সা. এক কথায় তার উত্তর দিলেন আমরা ক্ষুধা না লাগলে খাইনা আর ক্ষুধা রেখেই খাওয়া শেষ করি তাই রোগ হয় না।
প্রিয় পাঠক রাসুল সা. এর একটি কথার অনুস্মরণে চিকিৎসাবিদদের মতে ৭৫ শতাংশ রোগ থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব। রাসুল সা. এর এরুপ অসংখ্য সুন্নতের মধ্য থেকে কিছু সুন্নতের স্বাস্থ্যগত উপকারিতা তুলে ধরছি।
রাসুল সা. এর একটি সুন্নত হচ্ছে- এশার নামাজের পরেই ঘুমিয়ে পড়া এবং শেষ রাতে ঘুম থেকে জেগে পবিত্র হয়ে নামাজে দাড়িয়ে যাওয়া। এতে চিকিৎসা বিজ্ঞানের মতে মানব শরীরে জমে থাকা অতিরিক্ত চর্বি অনেক রোগের মুল কারণ। রাতের প্রথম ভাগের ঘুম আহার নিয়ন্ত্রণ আর রাতের শেষ ভাগে ব্যায়ামের মাধ্যমে চর্বি গলে যায়। এমন অভ্যাস সুস্বাস্থ্যের প্রথম সোপান।
ঘুম থেকে উঠার পর উভয় হাতের তালু দিয়ে চোখ ও মুখমÐল ঘর্ষন সুন্নত : এতে ঘুম ও ক্লান্তি উভয় দুর হয়। (তিরমিযি)
মিসওয়াক করা অন্যতম সুন্নত : রাসুল সা. বলেছেন- উম্মতের জন্য যদি কষ্ট না হত তাহলে মিসওয়াক করা ফরজ করে দিতাম। (আবু দাউদ) নিয়মিত মিসওয়াক করলে দাতের কয়েকটি ভয়ংকর রোগ যেমন জিনজি ভাইটিস বা দাতের পচন রোগ, কেরিসটিথ বা দাতের ক্ষয় রোগ ও পাইয়োরিয়া বা দাতের মাড়িফোলা রোগ থেকে মুক্ত পাওয়া যায়।
অযু বা গোসলের পুর্বে হাত ভাল করে পরিস্কার করে পাত্রে হাত দেয়া সুন্নত : তিরমিযি) স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের মতে- হাতে বিভিন্ন কারণে ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়াসহ বিভিন্ন দুষিত পদার্থ লেগে থাকতে পারে। তাই ভাল করে হাত পরিস্কার করা জরুরী। এরই সুত্র ধরে বর্তমানে করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রে সাবান, স্যানিটাইজার, হ্যান্ডওয়াশ ও হ্যান্ডগ্রাব দিয়ে হাত পরিস্কার রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
বাথরুম বা টয়লেটে প্রবেশের সময় মাথা ডাকা ও জুতা পড়া সুন্নত : চিকিৎসা বিজ্ঞানের মতে বাথরুমে বিভিন্ন জীবানুসহ অসংখ্য বক্র ক্রিমি থাকে যা খালি চোখে দেখা যায় না। মাথা ডেকে পায়ে জুতা পড়ে প্রবেশ করলে এসব জীবানু ও ক্রিমি হতে রক্ষা পাওয়া যায়।
পেশাব পায়খানা থেকে পবিত্রতা অর্জন করা একটি অত্যাবশ্যকিয় সুন্নত : (বুখারী ও তিরমিযি) বিশেষজ্ঞ স্বাস্থ্যবিদদের মতে মানব শরীরে প্রতি নিয়ত অসংখ্য রোগ জীবানু প্রবেশ করে। কিন্তু রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার কারণে এবং অনুকুল পরিবেশ না পেয়ে ১০ শতাংশ জীবানু মলের সাথে এবং ৯০ শতাংশ পেশাবের সাথে বের হয়। এসব মল মুত্র শরীরে বা কাপড়ে লাগলে রোগাক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই পরিস্কার ও পরিচ্ছন্নতা জরুরী।
রাসুল সা. বলেছেন তোমরা গোফ খাটো কর এবং দাড়িকে ছেড়ে দাও (বুখারী ও তিরমিযি) স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের মতে ঘন ঘন দাড়ি ও গোফ সেভ করলে ত্বকের পর্শকাতরতা কমে ও দৃষ্টি শক্তি লোপ পায়।
রাসুল সা. এর ্আরেকটি সুন্নত হল নাভীর নিচে ও বগলের পশম পরিস্কার করা এবং মাথার চুল ও দাড়ি পরিস্কার করে তেল ও মেহেদী লাগানো : স্বাস্থ্য গবেষণায় প্রমানিত চুলে তেল ও মেহেদী লাগালে অকালে চুল পাকা ও ঝড়ে পড়া বন্ধ হয়।
রাসুল সা. হাত ও পায়ের নখ ছোট করার নির্দেশ দেন। নখ ছোট ও পরিস্কার রাখলে পেটের পীড়া থেকে মুক্ত থাকা যায়।
খাওয়ার পর প্লেট ও হাতের আঙ্গুল চেটে খাওয়া সুন্নত : এর দ্বারা খাদ্যের অপচয় রোধ ও ভিটামিন গ্রহন সম্ভব হয়। আর আঙ্গুল চুষার কারণে মুখের ভিতর সেলিভারি গ্রান্ড নামক এক প্রকার পাচক বের হয়। যা খাদ্য দ্রæত হজমে সহযোগিতা করে এবং বিভিন্ন পীড়া থেকে মুক্ত রাখে।
রাসুল সা. এর আলোচিত সুন্নত হল খাৎনা করা : খাৎনা করলে পুরুষাঙ্গের ফাইমোসিল বা প্যারা ফাইমোসিল ব্যাধি থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। এজন্য অনেক অমুসলিমও খাৎনা করে থাকে।
ইসলামের ৫টি স্তম্ভের প্রতিটিতেই রয়েছে পরকালিন মুক্তির পাশা পাশি ইহকালিন সর্বোৎকৃষ্ট জীবন ব্যবস্থা যেমন ইমান মানুষকে তার প্রভুর সন্ধান মনে প্রশান্তি ও সুন্দর জীবন গঠনের পথ দেখায়।
নামাজ মানুষকে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের পাশা পাশি দৈহিক সুস্থ্যতা নিয়মানুবর্তিতা নেতার আনুগত্য ও ভাতৃত্ববোধের শিক্ষা দেয়। নামাজ এমন একটি ইবাদত যা শরীরের প্রতিটি অঙ্গ প্রতঙ্গের ব্যায়াম হয়। তাছাড়া সিজদার মাধ্যমে ব্রেইনে সঠিকভাবে রক্ত সঞ্চালনের মাধ্যমে মনে প্রশান্তি আনে। ফলে টেনশন ব্রেইনস্ট্রোক ও হার্টএ্যাটাকের মত জটিল সমস্যা থেকে রক্ষা করে।
রোজা একটি গুরুত্বপুর্ন সুন্নত : স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের মতে আমরা প্রতিদিন যে সকল খাদ্য গ্রহন করি তা প্রয়োজনের অতিরিক্ত অংশ ফেট বা চর্বিতে রুপান্তরিত হয়ে শরীরের অভ্যন্তরে জমে বিভিন্ন রোগের জন্ম দেয়। এসকল ফেট বা চর্বি ভাঙ্গার একমাত্র মাধ্যম হল পরিমিত খাদ্যভ্যাস কায়িক পরিশ্রম রোজা বা উপবাস।
রমজানের রোজার পাশাপাশি সপ্তাহের সোমবার প্রতি চাদের ১৩, ১৪ ও ১৫ শাওয়ালের ছয় রোজা ও মহরমের দিন রোজা রাখলে শরীরে চর্বি জমার সম্ভাবনা থাকেনা। আর অনেক মরনব্যাধি রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায় বলে অনেক অমুসলিমও রোজার অনুকরনে উপবাস থাকে।
হজ্জ এমন একটি ইবাদত যার মাধ্যমে সারা বিশে^র মুসলমানের মিলন মেলায় ভাতৃত্বের সৃষ্টি হয়। স্বাস্থ্য বিজ্ঞানের মতে প্রতিনিয়ত মানব ব্রেইনে ম্যাগনেট তৈরি হয়। যা পৃথিবীর কেন্দ্রস্থলের মাটিতে শীর অবনতের মাধ্যমে দ্রæত ম্যাগনেট দুর করা সম্ভব। এ জন্য পবিত্র কাবায় নামাজ আদায়ে এক লক্ষ গুন ছওয়াব বেশী হয়।
যাকাত ইসলামমের একটি গুরুত্বপুর্ন ইবাদত : যাকাত আদায়ে সম্পদ পবিত্র হয়। দরিদ্রতা দুর হয়ে সমাজে ধনী গরিবের সামঞ্জস্যতা বজায় থাকে।
বিশ^ মানবতার মুক্তির অগ্রদুত হযরত মুহাম্মদ সা. এর প্রতিটি কথা কাজ আদেশ নিষেধের মধ্যে রয়েছে ইহকালিন শান্তি ও পরকালিন মুক্তি। আধুনি এ বিশ^ায়নের যুগেও রাসুল সা. এর সুন্নত বাস্তবায়িত হলে অশান্ত এ পৃথিবীতে শান্তির পরিবেশ ফিরে আসবে। আল্লাহ তায়ালা আমাদের সবাইকে রাসুলের সুন্নতগুলো পালনের তওফিক দান করুন আমীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর